Hello,

একটি ফ্রি একাউন্ট খোলার মাধ্যমে বই প্রেমীদের দুনিয়ায় প্রবেস করুন..🌡️

Welcome Back,

অনুগ্রহ করে আপনার একাউন্টি লগইন করুন

Forgot Password,

আপনার পাসওয়ার্ড হারিয়েছেন? আপনার ইমেইল ঠিকানা লিখুন. আপনি একটি লিঙ্ক পাবেন এবং ইমেলের মাধ্যমে একটি নতুন পাসওয়ার্ড তৈরি করবেন।

Please briefly explain why you feel this question should be reported.

Please briefly explain why you feel this answer should be reported.

Please briefly explain why you feel this user should be reported.

বই প্রেমীদের দুনিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

এমন হলে ব্যাপারটা কেমন হয়? বাংলা ভাষা-ভাষি সকল লেখক এবং পাঠকগণ একই যায়গায় থাকবে এবং একই প্লাটফর্মে তাদের বই সম্পর্কিত অনুভূতিগুলো শেয়ার করবে। যেখানে শুধুমাত্র বই সম্পর্কিত আলোচনা হবে। কখন কোন বই প্রকাশিত হয়েছে বা হবে তা মুহুর্তেই বই প্রেমিরা জানতে পারবে। প্রিয় পাঠক, নিশ্চয়ই আপনি বই পড়তে অনেক ভালোবাসেন। আপনার লেখা বইয়ে রিভিউ গুলো খুবই সুন্দর, তাই পড়তে অনেক ভালো লাগে। বাংলাদেশে এই প্রথম পাঠকদের জন্য "বাংলাদেশ পাঠক ফোরাম" তৈরি করেছে boiinfo.com নামে চমৎকার একটি কমিউনিটি ওয়েবসাইট। এখানে আপনি আপনার বই সম্পর্কিত অনুভূতিগুলো ছড়িয়ে দিতে পারেন লাখো পাঠকের কাছে। এই ওয়েবসাইটের কি কি সুবিধা রয়েছে? এখানে খুব সহজেই অর্থাৎ শুধুমাত্র একটি ইমেইল এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে ফ্রিতে একটি অ্যাকাউন্ট খুলে আপনি হয়ে যেতে পারেন বইইনফো.কম এর একজন সম্মানিত লেখক। ১. থাকছে ফেসবুকের মত চমৎকার একটি প্রোফাইল। ২. একজন পাঠক অপরজনকে মেসেজ করার সুবিধা ৩. প্রিয়ো ক্যাটাগরি, লেখক, পাঠক, অথবা ট্যাগ ফলো দিয়ে রাখলেই ঐ সম্পর্কিত বইয়ের নটিফিকেসন। ৪. বই রিলেটেড বেশি বেশি আর্টিকেল লিখে এবং বই সম্পর্কিত প্রশ্ন করে জিতে নেয়া যাবে পয়েন্টস, স্পেশাল ব্যাজ এবং আকর্ষণীয় বই উপহার। ৫. যারা নিয়মিত পাঠক তাদের জন্য থাকছে ভেরিফাইড প্রোফাইল সহ আরো অনেক কিছু! বইইনফো.কম এর উদ্দেশ্য হলো বাংলা ভাষাভাষী সকল লেখক ও পাঠকদের কে একত্রিত করা। 💕লাইফ টাইম মেম্বার সিপ 💕কোন ধরনের সাবস্ক্রিপশন ফি নেই ♂️রেজিস্ট্রেশন সম্পূর্ণ করুন মোট দুটি ধাপে। ১. সংক্ষিপ্ত তথ্য ও ইমেইল আইডি দিয়ে সাইন আপ করুন। ২. ইউজারনেম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন। তাই দেরি না করে এখনি চলে আসুন বইয়ের দুনিয়ায়, আমরা তৈরি করতে চাই বই পাঠকের এক নতুন দুনিয়া! ফ্রি রেজিস্ট্রেশন করতে এখনই ক্লিক করুন। ♂️ boiinfo.com

তুমি ফিরবে বলে (ফিমেইল ভার্সন) লেখকঃ জাকারিয়া মাসুদ

তুমি ফিরবে বলে (ফিমেইল ভার্সন) লেখকঃ জাকারিয়া মাসুদ
5/5 - (1 vote)

বইঃ তুমি ফিরবে বলে (ফিমেইল ভার্সন)
লেখকঃ জাকারিয়া মাসুদ
Review Credit 💕 Tanha Tony

“তুমি ফিরবে বলে” শুধু একটি বই না। আমি “শুধু একটি বই” বলে লেখকের এত বিশাল প্রচেষ্টাকে ছোট করতে চাইনা। প্রতিটি পরতে পরতে, পাতায় পাতায় আমি প্রমাণ পাচ্ছিলাম অতল অন্ধকারে হারিয়ে যাওয়া তুমিটাকে ফিরিয়ে আনার জন্য লেখক তার সর্বোচ্চ চেষ্টাটাই দিয়েছেন। “তুমি ফিরবে বলে” নামটি সার্থক। নামটি সার্থক প্রতিটি লাইনে লাইনে, পৃষ্ঠায় পৃষ্ঠায়। বিপথে হারিয়ে যাওয়া পথহারা পথিককে রবের হিদায়াতের ছায়াতলে ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য লেখক জাকারিয়া মাসুদের বিশাল এক শ্রমের নাম যেনো “তুমি ফিরবে বলে”

দুনিয়াটাকে নিজের একমাত্র গন্তব্য, ভোগের স্থান ভাবা মেয়েগুলোকে ফিরিয়ে আনার জন্য কোনোকিছুই যেনো বাদ দেননি জাকারিয়া মাসুদ তার এই বইয়ে।

হতাশার কারণ, হতাশার বিরুদ্ধে লড়াই, হতাশা থেকে রবের ছায়াতলে ফিরে আসার উপায়, নারীদের উপর পাশ্চাত্যের সুকৌশল চক্রান্ত, আইটেম সঙ, সুন্দরী প্রতিযোগিতা, এক টাকার শ্যাম্পু থেকে লাখ টাকার গাড়ি, রিসিপশন কিংবা খবরের পাতায় পাতায় কীভাবে পশ্চিমারা, বেণিয়ারা নারীদেহটাকে ব্যবসার একটা উপকরণে পরিণত করেছে, কীভাবে নারীদের চোখদুটোকে অন্ধ বানিয়ে রেখেছে সেসবকিছুর আগা-গোরা কোনো কিছুই বাদ দেননি লেখক এই বইয়ে।

রূপচর্চা, পোশাক-আশাক, কিউটনেস, যশ-খ্যাতি, প্রতি সপ্তাহয় দু’বার করে স্পা করতে অভিজাত্য পার্লারে যাওয়া,বয় ফ্রেন্ডের সাথে লঙ ড্রাইভে যাওয়া, মিনিস্কার্ট পড়ে বয়ফ্রেন্ডের বুক জড়িয়ে বাইকে ঘুরে বেড়ানো ইত্যাদি দুনিয়ার চাকচিক্য ও প্রসাধনীর মোহে আটকে পড়া মেয়েটাকে ফিরিয়ে আনার জন্য যত ধরণের প্রচেষ্টা প্রয়োজন সবই যেনো লেখক তার এই কলমযুদ্ধে রেখেছেন।

বাদ দেননি ইসলামে নারীর সম্মান এর বিষয়ও। মধ্যযুগীয় বর্বরতা নিয়ে মানুষের ভুল ধারণা ভেঙে দিতেও ভুলেননি লেখক জাকারিয়া মাসুদ। যে যুগে ভারতীয় শুদ্র নারীদেরকে স্তন ঢাকার অপরাধে কর দিতে হয়েছে, নারী হওয়ার অপরাধে ব্রাক্ষ্মণ নারীরা মন্ত্র পড়ার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হতো, বেদ স্পর্শ করার অপরাধে শাস্তি পেতো নিম্নবর্ণের হিন্দুরা স্বজাতি থেকে,যে যুগে মধ্যযুগের ক্যাথলিক চার্চরা আইরন মেইডেন বানিয়ে নারীদের খুঁচিয়ে মার‍ত, ব্রেস্ট রিপার দিয়ে স্তন ছিন্নভিন্ন করে ফেলত কিংবা হেরেটিক্স ফর্ক লাগিয়ে গলা এফোর ওফোর করে ফেলত, যে যুগে পাদ্রীরা নারীদেরকে শুধুমাত্র সেক্সের বস্তু হিসেবে ভাবত,যে যুগে পাশ্চাত্যরা নারী জাতিকে ইশ্বরের অভিশাপ ভাবত, ঋতুমতী নারীকে অশুচি ভাবত, পশ্চিমা ধর্মগুরুরা নারী শিক্ষার কঠোর বিরোধিতা করত সেই একই যুগে কাবা শরীফ পর্যন্ত মুসলিম নারীদের বিচরণ, রাষ্ট্রীয় ভাবে নারীদের দ্বীন শেখার এমনকি দাসীদেরকেও শিক্ষিত করার ব্যবস্থা, সবকিছুতে নারীদের অধিকার, বোন, স্ত্রী, মা, কন্যা হিসেবে নারীর সম্মান দিয়েছিলো ইসলাম সেসবকিছুই বইটিতে তুলে ধরছেন লেখক।

তওবার পথে, সিরাতল মুস্তাকিমের পথে ফিরে আসতে শয়তান কত ধরণের বাধা দেয়, শয়তানের কূটকৌশল এবং সেগুলোর বিররুদ্ধে কীভাবে লড়াই করতে হবে, রবের দয়াশীলতা, তাওবাকারী বান্দার প্রতি রবের ভালোবাসা, স্নেহমমতা সবই রয়েছে বইটিতে। প্রথমেই যে বললাম “তুমি ফিরবে বলে” নামটি সার্থক। বইয়ের প্রতিটি পাতায় পাতায় অক্লান্ত পরিশ্রম কোনো এক বা একাধিক তুমিকে রবের কাছে ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য…..

________________________________
বইটি থেকে কিছু মনকাড়া, হৃদয়ে লাগার মতো অংশ তুলে ধরলাম—

★অন্তরে যখন মহান আল্লাহ ছাড়া প্রসাধনী-মেইকয়াপ, ড্রেসাপ ইত্যাদি জিনিস স্থান পাবে, তখন হতাশা কেবল বাড়তেই থাকবে। না পাওয়ার বেদনা তাড়া করবে ক্ষণে ক্ষণে। ‘কি যেনো নেই আমার’, ‘কোন জিনিস যেনো পাইনি আমি’, ‘কোথায় যেনো একটা শূন্যতা রয়ে গেছে’— মনে এমন ভাবনার উদয় থাকবে প্রতিটা মূহুর্তে।

★বোন আমার, তোমার রব তোমাকে শ্রেষ্ঠ বানিয়েছেন। না, তোমার সৌন্দর্যের জন্য না। রূপলাবণ্যের জন্যও না। তুমি শ্রেষ্ঠ, কারণ তোমার আত্মমর্যাদা আছে। তোমার কাছে আছে ইমান। আছে আয়িশা, ফাতিমা কিংবা খাদিজার মতো মহীয়সী নারীদের আদর্শ। তুমি পৃথিবীসেরা সভ্যতার অনুসারী। এরপরও কী অসভ্যতার অলিতে গলিতে ঘুরে নিজেকে নিঃশেষ করে দেবে?

★তুমি নিজের সৌন্দর্য পরপুরুষের সামনে কেন মেলে ধরো?
দেহসুষমা কী রাস্তায় দেখিয়ে বেড়ানোর মতো তুচ্ছ জিনিস?
টোকাইকে যৌন-উদ্দীপ্ত করার জন্য কী আল্লাহ তোমায় রূপ-লাবণ্য দিয়েছেন?
কীসের জন্য এতোটা উন্মাদ হয়ে গেলে?

★প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে কোনো পুরুষকে ভালোবেসে যাওয়ার নাম “কাছে আসা” নয়। কারও সাথে পালিয়ে গিয়ে সংসার করার নাম “কাছে আসা” নয়। এগুলোতে সাহসের ছিটেফোঁটাও নেই। কেবল আছে নোংরামো ও অবাধ্যতা। সত্যিকার কাছে আসা তো রবের দিকে ফিরে আসার নাম। সত্যকে আলিঙ্গন করার নাম “কাছে আসা”

★বোন আমার,জীবনকে স্পাইসি করে তোলার সব আয়োজনই বৃথা, যদি আমরা না জানি—আমাদের জীবনের উদ্দেশ্য কী। জীবনের প্রকৃত উদ্দেশ্য কেউ যদি ঠাওর করতে না পারে, তাহলে দুনিয়ায় আসাটা তার জন্য মূল্যহীন। আর মুসলিম পরিবারে জন্ম নিয়ে কেউ যদি এমনটা করে, তবে তার জীবনটা তো ষোলোয়ানাই মূল্যহীন। ওর জীবন আর নাদুসনুদুস গরুর জীবনের মধ্যে তেমন কোনো পার্থক্য নেই। ওই গরুটা Voracious Animal, আর সে Voracious Human— পার্থক্য সর্বোচ্চ এতটুকুই।

★হৃদয়ে যদি আল্লাহর জন্য সামান্য জায়গাও থাকত, তবে তো তাঁর বিরহে একটু হলেও কাঁদতে। কেঁদেছিলে কখনো? বলো তো, শেষ কবে তাঁর জন্যে চোখের জল ফেলেছিলে?

★সবচেয়ে সম্মানিত, মর্যাদাবান ও সর্বোত্তম মেয়ে কারা, তার বাস্তব চিত্র ফুটে উঠে হিজাব পরিধানের মধ্য দিয়ে। হিজাবি মেয়েরা এই বার্তা দিয়ে যায় যে, তারা অন্যান্য মেয়েদের থেকে অনেক সম্ভ্রান্ত। তাদের জীবনাচার মানুষের জন্য অনুসরণীয়, অনুকরণীয়।

★তুমি যদি আল্লাহর বিধান মানতে না চাও, অসুবিধা নেই। সাড়ে সাত শ কোটি মানুষের মধ্যে ছয় শ কোটিকে যদি ইসলাম তার তালিকা থেকে বাদ দিতে পারে, তবে তোমার মতো নারী ইসলামে না থাকলে কীই বা আসে যায়!

★মহীয়সী নারীদের কেউই চাকরি-বাকরি নিয়ে পড়ে থাকেননি। তাঁরা ঘর সামলেছেন, বাচ্চা সামলেছেন। পর্দার আড়ালে থেকেই তাঁরা গড়ে তুলেছেন আবু হানিফা, আব্দুল্লাহ ইবনুল মুবারক কিংবা ইবনু তাইমিয়ার মতো মনীষীদের।

★অনবরত পাপ কাজ শেষ করে দেয় লজ্জাকে।অন্তরকে করে দেয় কলুষিত। সে অন্তর দিয়ে মন্দকে আর মন্দ বলে উপলব্ধি করা যায়না। ফলে লজ্জার কাজটাও নির্লজ্জের মতো করে ফেলে মানুষ

__________________________________

এরকম হাজার হাজার লাইন আছে,মোটিভেশন আছে, ফিরে আসার পথ বলে দেওয়া আছে বইটিতে। রয়েছে অসংখ্য কুরআন ও হাদিসের আয়াত।
এ পর্যন্ত যেক’টা লাইন তুলে ধরেছি বই থেকে তাতে অনেকে ভাববে পুরো বইটাই বুঝি প্রকাশ করে ফেলেছি লিখে। কিন্তু সত্যি বলতে আমি যতটুকু এখানে তুলে ধরেছি তা পুরো বইটার একশ ভাগের এক ভাগও না। এ বইটা মিস করলে অনেক কিছু মিস করে ফেলবেন এটুকু বলতে পারি। আমার তরফ থেকে এডভাইস হিসেবে সবার জন্য মোস্ট রিকমন্ডেড একটা বই। এ বইয়ের পরতে পরতে লুকিয়ে আছে ফিরে আসার গল্প। সত্যিই সার্থক একটি নাম “তুমি ফিরবে বলে….”

Md Rafsan

Md Rafsan

বইইনফো ডট কম একটি বই সম্পর্কিত লেখালেখির উন্মুক্ত কমিউনিটি ওয়েবসাইট। শুধু মাত্র একটি ফ্রি একাউন্ট খোলার মাধ্যমে আপনিও লিখতে পারেন যে কোনো বই সম্পর্কে, প্রশ্ন করতে পারেন যে কোনো বিষয়ের উপর।

Related Posts

Leave a comment

নতুন প্রকাশিত হওয়া আর্টিকেলগুলো

boiinfo.com Latest Articles

রূপকথন   –   বন্যা হোসেন

রূপকথন – বন্যা হোসেন

...

মা  –  আনিসুল হক

মা – আনিসুল হক

...

প্রিয় মায়াবতীর মায়া

প্রিয় মায়াবতীর মায়া

...

প্রিয় মায়াবতীর মায়া

প্রিয় মায়াবতীর মায়া

...

ফুল ফুটেছে বনে : আবদুল হক

ফুল ফুটেছে বনে : আবদুল হক

...

জমজম :যুবাইর আহমাদ তানঈম

জমজম :যুবাইর আহমাদ তানঈম

...

নারীবাদী বনাম নারীবাঁদি

...

কথুলহু    –   আসিফ রুডলফায

কথুলহু – আসিফ রুডলফায

...

তাফসীরে উসমানী

তাফসীরে উসমানী

...

And Then There Were None    –    Agatha Christie

And Then There Were None – Agatha Christie

...

বিষাদবাড়ি    –     Nahid Ahsan

বিষাদবাড়ি – Nahid Ahsan

...

ছায়ানগর

ছায়ানগর

...

মনে থাকবে    –     আরণ্যক বসু

মনে থাকবে – আরণ্যক বসু

...

And Then There Were None   –    Agatha Christie

And Then There Were None – Agatha Christie

...

পিনবল

পিনবল

...

লেজেন্ড    –    ম্যারি লু

লেজেন্ড – ম্যারি লু

...

প্রশ্নগুলোর উত্তর দিন ⤵️